বাইতুল মোকারম মসজিদ

আমি খুব একটা ভোরবেলাতে উঠি না। কিন্তু খুব অস্বাভাবিকভাবে আজ খুব ভোরে উঠে পড়লাম। গতকাল বিকালে ফটোগ্রাফার আকরাম ভাইয়ের সাথে ফেবুতে গল্প হচ্ছিল। হঠাৎ আকরাম ভাই প্রস্তাব দিলেন চলেন কাল সকালে ছবি তুলতে যাই। আমি কিছুটা দ্বিধায় ছিলাম যাব কিনা, কারন সেই ভোরবেলাতে ঘুম ভাঙ্গবে কিনা সেটার কথা ভেবে।

যথারীতি আকরাম ভাই ভোর ৫.৩০ এ আমাকে ঘুম ভাঙ্গালেন আর বললেন,

Image

“অয়ন চলো ছবি তুলতে যাই। আমিও রাজী হয়ে গেলাম”। বাড়ীর আশপাশ দারুন সব জায়গা ঘোরাঘোরি হয়ে গেল।

একটা সময় ধুমসে বৃষ্টি আমাদেরকে বাড়ী ফেরত পাঠালো্।

সবার জন্যে একটা ছবি তুলে আনলাম।

Advertisements

Prime 50 Photo Exhibition 2013

Image

শেষ হলো পোভ ফটোগ্রাফিক গ্রুপের প্রথম ফটোগ্রাফি প্রদশর্নী “প্রাইম ফিফটি”। দারুন ছিল আয়োজন। আয়োজকদের কারোর কোন চেষ্টার ক্রুটি ছিল না। আমার সবচেয়ে ভালো লেগেছে আমাদের গুরুজন ফটোগ্রাফার হাসান চন্দন স্যারকে সম্মানিত করে প্রদশর্নীর সাথে সম্পৃত্ত করা। যা আমি কোন প্রদশর্নীতে দেখি নি। আমি অনেক গ্রুপের প্রদশর্নী দেখেছি কিন্তু এইরকমভাবে গুরুজন ফটোগ্রাফারদের কখনো ডাকা হয় না এবং কাউকে সন্মান জানানো হয় না। এই রকম অনেক গুরুজন ফটোগ্রাফার আছেন যারা অভিমান করে লোকচক্ষুর আড়ালে থাকেন, যারা একসময়কার দারুন সব ছবি দিয়ে মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখতেন এখন যারা বয়সের ভারে পুরানো ছবি নিয়ে স্মৃতিচারন করেন। তাদের মুখে ছবির পিছনের গল্প শুনে আমাদেরকেও সামনে এগিয়ে যাওয়ার কথা প্রেরণা দিবে সবসময়। আমি কৃতজ্ঞতা জানাই স্নেহের ছোট ভাই রাহাতকে যার সুন্দর নেতৃত্বে দারুন একটা প্রদশর্নী আমি উপভোগ করেছি। খুব ভালো লেগেছে যারা দারুন ছবির জন্যে ক্রেষ্ট পেয়েছেন তাদেরকে অভিনন্দন। যারা পান নি তাদেরকেও অভিনন্দন কারন তাদের ছবি প্রদশর্নীতে স্থান পেয়েছে। আমার খুব ভালো লেগেছে আমি অনেক ফটোগ্রাফারকে খুব কাছের থেকে ফটোগ্রাফির বর্ণমালার শুরু দেখেছি। তারা দিনের পর দিন ফটোগ্রাফিকে ভালোবেসে চর্চা করে নিজেকে যোগ্য করে তুলেছে এবং তাদের ছবি আজ বিভিন্ন প্রদশর্নীতে স্থান পাচ্ছে, তাদের ভিতর তামিম, ফায়েক, ফাহমিদ, সুষম, স্বপ্নীল, মুশফিক এরকম অনেকগুলো নাম। ভবিষ্যতে আরো এরকম অনেকের নাম দেখতে পাবো। শুভ কামনা রইল নতুনদের জন্যে। একদিন আমরা সবাই মিলে আমাদের ছবি দিয়ে সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিব আর সুদৃঢ় কন্ঠে বলব, “আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি”।

যারা ফটোগ্রাফি জগতে নতুন পা রেখেছেন বা পা রাখবেন ভাবছেন। যারা নিজেদের বেসিক নড়বড়ে বলে মনে করছেন তারা এখানে রেজিস্টার করে ফ্রি শিক্ষাগ্রহন করতে পারেন। খুব সুন্দর গোছানো পদ্ধতি ফটোগ্রাফি শেখাচ্ছেন আমার প্রিয় ফটোগ্রাফার মনির ভাই ।

এইখানে লিংক দিলাম। http://www.shikkhok.com/%E0%A6%95%E0%A7%8B%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%B8-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A6%BE/photography/

আশাকরি সবার ভালো লাগবে।

১৮-৫৫ লেন্স

যারা ১৮-৫৫ লেন্স হাতে রেখে অন্য আরেকজনের হাতে লাল ফিতা এল লেন্স দেখে হা হুতাশ করেন । তাদেরকে বলছি আগে কম্পোজিশন শিখেন, লাইটটাকে বোঝার চেষ্টা করেন। তাহলে অসাধারন কিছু ফ্রেম করতে পারবেন। কাউকে কপি করবেন না নিজের ভিতর থেকে ফ্রেম বানান নিজের ভালো লাগা বলে কথা। আপনার নিজস্ব ভাবনায় ছবি দেখে অন্য আরেকজনের উক্তি যদি থাকে, “কি ঘোড়ার আন্ডা তুলছোস, এইটা কিছু হইছে !” এখানে মন খারাপ করার কিছু নেই আপনি প্রাথমিক স্তরে পার হয়েছে তাই আপনি তুলতে পারছেন তা প্রতীয়মান হযেছে। আপনার প্রশ্ন আমাদের করুন। আমরা সবাই মিলে শিখব শিখাব। আমাদের এখানে কোন ছোট-বড় ফটোগ্রাফার বলে কিছু নেই। আমাদের পার্থক্য শুধু একটাই অভিজ্ঞতার তারতম্য। বেশী বেশী করে শিখুন অভিজ্ঞতার ভান্ডার বাড়ান। যারা ১৮-৫৫ কে পাত্তা দিতে চান না তাদের জন্যে এই লিংক http://www.pixel-peeper.com/lenses/?lens=25 । এখানে এক্সিভসহ ছবি দেখতে পারবেন আপনাদের সহজে আইডিয়া হয়ে যাবে কোন ধরনের আলো ক্ষেত্রে কি ধরনের সের্টিংস ব্যবহার হয়ে থাকে।

পুরানো ক্যামেরা কেনার ক্ষেত্রে দরকারী টিপস

যারা পুরানো ক্যামেরা কেনার কথা ভাবছেন তারা অবশ্যই নিম্নোক্ত বিষয়গুলো পরীক্ষা নিরিক্ষা করে দেখে কিনবেন। 

১. শাটার কাউন্ট পরীক্ষা করুন : ছবি তুলে ফাইল নম্বর দেখে শাটার কাউন্ট দেখবেন। অনেক সময় রিসেট করে শাটার কাউন্ট মুছে ফেলে যায় সেই ক্ষেত্রে ক্যাননের জন্যে http://astrojargon.net/EOSInfo.aspx?AspxAutoDetectCookieSupport=1 এবং নিকনের জন্যেhttp://www.myshuttercount.com/
এই দুই পদ্ধতিতে শাটার কাউন্ট চেক করা যায়।

২. সেন্সর পরীক্ষা করুন : সেন্সর একটা ক্যামেরার সবচেয়ে গুরু্ত্বপূর্ণ বিষয়। প্রথমে খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে অথবা সাদা দেয়ালে যতটুকু সম্ভব ছোট এ্যাপাচার অথবা এফ ২২ দিয়ে ফটো তুলবেন। তাহলে দেখতে পারবেন ছবিতে কোথাও কোন প্রকার কালো স্পট বা অস্পষ্ট কিছু আছে নাকি। কালো স্পট থাকলে বুঝে নিবেন সেন্সরে ময়লা পড়েছে সেটি ক্লিন করতে হবে। এছাড়া ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সেন্সর চেক করার আরেকটি মেনুতে গিয়ে দেখবেন ম্যানুয়াল সেন্সর ক্লিনিং অপশন আছে ঔটা একটিভ করে দিবেন তখন খট করে শব্দ করে মিরর লক হয়ে উপরে উঠে যাবে তারপর লেন্স খুলে আপনি সেন্সর দেখে নিতে পারেন কোথাও কোন স্ক্র্যাচ আছে কিনা। ক্র্যাচ থাকলে সেটি আপনার ছবিকে আরো অস্পষ্ট করে তুলবে। তবে এই ধরনের সেন্সর পরীক্ষা করার সময় খোলা জায়গায় যাবেন না উল্টা ময়লা ঢুকে যেতে পারে।

৩. লেন্স পরীক্ষা করুন : প্রথমে দেখবেন ফ্রন্ট এবং রিয়ার এলিমেন্ট স্ক্র্যাচ আছে কিনা। তারপর লেন্স উল্টা করে আলোর দিকে ধরে দেখবে লেন্সের ভিতর কালো অথবা সাদা দাগ আছে কিনা। কালো হলে ডাস্ট জমেছে আর সাদা হলে ফাঙ্গাস জমেছে। তারপর অটো ফোকাস মুডে গিয়ে এভি অপশন সিলেক্ট করে ছোট থেকে বড় এ্যাপাচার চেক করে দেখবেন কোন প্রকার সমস্যা হচ্ছে কিনা। তারপর ম্যানুয়াল ফোকাস মুডে গিয়ে একই ভাবে পরীক্ষা করবেন।

৪. স্ক্রীন পরীক্ষা করুন : ভিউফাইন্ডারে চোখ রাখুন দেখুন স্পষ্ট কিনা, মেনু বাটন ও ন্যাভিগেটর বাটন প্রেস করে দেখুন ঠিকঠাক কাজ করছে কিনা। এলসিডি প্যানেল এর কোটিং ঠিক আছে নাকি দেখুন, স্ক্রীনে ছবি ঠিকঠাক রং দেখতে পারছেন কিনা দেখুন। তবে স্ত্রীনে ক্র্যাচ পড়াটা স্বাভাবিক তবে সেটা মাত্রাতিরিক্ত ভালো না । 

৫. বডির গায়ে ঘষা মাজা পরীক্ষা করুন : বেশী পুরানোর ক্ষেত্রে কিছু কিছু স্থানে বডির রং উঠে যেতে পারে কিংবা ফ্যাকাশে হয়ে যেতে পারে। তবে এটি সিরিয়াস ইস্যু নয়।

৬. আনুষঙ্গিক যন্ত্রাংশ পরীক্ষা করুন: ব্যাটারী, ব্যাটারী চার্জার, মেমোরি কার্ড, ইউভি ফ্লিটার (যদি থাকে), ইউএসবি ডাটা ক্যাবল, ড্রাইভার সিডি, ক্যামেরার ব্যবহার ম্যানুয়াল এই সব বুঝে নিবেন। যদি ওয়ারিন্টি থাকে সেই ক্ষেত্রে দরকারী কাগজ পত্র। কোথা থেকে কিনেছেন সেটি জানতে ক্রয়ের ক্যাশমেমো কাগজ দেখে নিবেন তাহলে আপনি জানতে পারবেন কতদিনে পুরানো। তবে অনেক সময় এই কাগজ নাও থাকতে পারে। অরিজিনাল কিংবা চোরাই ক্যামেরা কিনা যাচাই করতে অরিজিনাল ব্যাটারী চার্জার, ইউএসবি ক্যাবল, ড্রাইভার সিডি, ক্যামেরার ম্যানুয়াল বুক পরীক্ষা করে বুঝে নিবেন। মনে রাখবেন চোরাই কিংবা ছিনতাইকৃত গিয়ারের ক্ষেত্রে বেশীর ভাগ দুই নম্বর ব্যাটারী, চার্জার, ডাটা ক্যাবল দেওয়া হয় এবং অরিজিনাল সিডি ও ক্যামেরা ম্যানুয়াল সরবরাহ করা হয় না।

আশা করি, আপনারা সবাই ক্যামেরা কেনার ব্যাপারে সর্তকতা অবলম্বন করবেন। মনে রাখবেন, একটি দূঘর্টনা সারাজীবনের কান্না। সুতরাং আবেগের বশে কোন কিছু করবেন না, ধীরে সুস্থে সময় নিয়ে কিনুন, যাতে এটি করে কোন ক্যামেরা আপনার বোঝা না হয়ে এটি আপনার গর্বিত সম্পত্তি হয়। 

হ্যাপি ক্লিকিং

(তথ্য: http://asia.cnet.com/useful-tips-when-buying-a-secondhand-dslr-62204029.htm)

Photographers do not mean serious people

Photographers do not mean serious people

A bunch of photographers are enjoying and using body language to express their feelings infront of one my photographs which is exhibited in an exhibition named “Color Photography”. We photographers are not always in serious mood. We always enjoy photography in our own style. We visit every exhibition and discuss about photos to enrich our photographic sense.

Photo Credit: Rakib Hasan Sumon